Latest News
রবিবার, ১৬ জুন ২০২৪ ।। ২রা আষাঢ় ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
Home / জাতীয় / ঝালকাঠিতে কুকুরে কামড়ের ভ্যাকসিন সংকট : দুই দিনে ৮ শিশুসহ ৪০ জন আহত

ঝালকাঠিতে কুকুরে কামড়ের ভ্যাকসিন সংকট : দুই দিনে ৮ শিশুসহ ৪০ জন আহত

স্টাফ রিপোর্টার :
ঝালকাঠিতে গত দুই দিনে পাগলা কুকুরের কামড়ে অন্তত ৪০ জন আহত হয়েছে। এদের মধ্যে ৮ শিশুসহ নারী ও বয়স্করা রয়েছেন। আহতরা ঝালকাঠি সদর হাসপাতাল ও বরিশাল শেরেবাংলা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসা নিয়েছেন। কুকুরে কামড়ানোদের অভিযোগ, ঝালকাঠি সদর হাসপাতালে পর্যাপ্ত ভ্যাকসিন নেই। সংকট থাকায় ভ্যাকসিন বাইরের ওষুধের দোকান থেকে বেশি দামে কিনতে হচ্ছে। এদিকে কুকুরে কামড়ানোর ঘটনায় শহরজুড়ে আঙ্কক ছড়িয়ে পড়েছে। জেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে পোষা কুকুরের গলায় বেল্ট পরানোর জন্য অনুরোধ জানানো হয়েছে।
আহতরা জানায়, সোমবার দুপুর পর্যন্ত ঝালকাঠি শহরের কলেজ মোড় এলাকায় একটি কুকুরে অন্তত ১৫ জন পথচারীকে কামড় দেয়। এছাড়াও উপজেলার বিভিন্ন স্থানে রবিবার থেকে এ পর্যন্ত আরো ২৫ জন কুকুরের কামড়ে আহত হয়েছেন।
ঝালকাঠি সদর হাসপাতালের জরুরী বিভাগ সূত্রে জানা যায়, রবিবার ২১ জন এবং সোমবার ১৪ জন কুকুরের কামড়ে আহতরা চিকিৎসা নিতে এসেছেন হাসপাতালে । ভ্যাকসিন সংকটের কারণে তাদের সবার চিকিৎসা করানো সম্ভব হয়নি। অনেকে বাইরের ওষুধের দোকান থেকে ভ্যাকসিন কিনে এনেছেন। হাসপাতাল ও শহরের ওষুধের দোকানগুলোতে ভ্যাকসিন না পেয়ে অনেকে আবার বরিশাল শেরবাংলা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসা নিয়েছেন। শহরের চাঁদকাঠি এলাকার ফারুক হোসেন (৬৫) বলেন, আজ সোমবার সকালে আমি বাসা থেকে রাস্তায় বের হলে একটি কুকুর এসে আমার পায়ে কামড় দেয়। আমি হাসপাতালে গিয়ে ভ্যাকসিন খুঁজে পাইনি। পরে বাইরে ফার্মেসি থেকে ভ্যাকসিন এনে দিয়েছি। শুনেছি শহরের ওষুধের দোকানেও নাকি কুকুরে কামড়ানো ভ্যাকসিন পাওয়া যায় না।
কলেজমোড় এলাকার মো. শাহ আলম (৪৫) বলেন, রবিবার কলেজ মোড় এলাকায় একটি কুকুরে অন্তত ১৫ জনকে কামড় দিয়েছে। এর মধ্যে রাখি নামের একটি চার বছরের শিশু রয়েছে। তাকে ঝালকাঠি হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়। এছাড়াও চামটা গ্রামের হুমায়ুন (৭০) ও বাদলকাঠি গ্রামের রোকেয়া বেগম (৪০) নামে এক নারীকেও কুকুর কামড় দিয়েছে। ঘটনা শুনে আমিও রাস্তায় বের হলে ওই কুকুরটি আমাকেও কামড় দেয়। ঝালকাঠিতে ভ্যাকসিন না পেয়ে আমি বরিশাল শেরেবাংলা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে গিয়ে চিকিৎসা নিয়েছি।
ঝালকাঠির সিভিল সার্জন ডা. শ্যামল কৃষ্ণ হাওলাদার বলেন, ঝালকাঠির বিভিন্ন স্থানে কুকুরে কামড়ানো রোগী প্রায়ই হাসপাতালে আসে। এদের নিয়মিত ভ্যাকসিন দেওয়া হচ্ছে। হঠাৎ করে দুই দিনে ৪০ জনকে কুকুরে কামড় দিয়েছে। আমরা সাধ্যমত চিকিৎসা দিয়েছি। তবে ভ্যাকসিন সংকট থাকায় অনেকে চিকিৎসা নিতে পারেনি। আমরা ভ্যাকসিন সংকটের কথা ঢাকায় সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষকে জানিয়েছি। আশাকরি দ্রুততম সময়ের মধ্যেই সংকট দূর হবে।
ঝালকাঠির জেলা প্রশাসক মো. হামিদুল হক ফেসবুক স্টাটাসে জানান, সকল পোষা কুকুরের গলায় বেল্ট পরানোর জন্য সংশ্লিষ্ট মালিকদের অনুরোধ জানাচ্ছি। পাগলা কুকুর নিয়ন্ত্রণে সকলের সহযোগিতা চেয়েছেন জেলা প্রশাসক।