Latest News
বুধবার, ২৯ মে ২০২৪ ।। ১৫ই জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
Home / জাতীয় / নলছিটিতে হাত পা বাধা অবস্থায় যুবকের লাশ উদ্ধার : মাইক্রোবাস থেকে ফেলে রেখে যায় দৃর্বুত্তরা

নলছিটিতে হাত পা বাধা অবস্থায় যুবকের লাশ উদ্ধার : মাইক্রোবাস থেকে ফেলে রেখে যায় দৃর্বুত্তরা

স্টাফ রিপোর্টার :
ঝালকাঠির নলছিটিতে অজ্ঞাত এক যুবকের (২৫) হাত পা বাধা লাশ উদ্দার করেছে পুলিশ। বুধবার বিকেল চারটার দিকে ঝালকাঠি-বরিশাল আঞ্চলিক মহাসড়কের রায়াপুর এলাকায় মাইক্রোবাস থেকে দুর্বৃত্তরা লাশটি ফেলে যায় বলে প্রত্যক্ষদর্শীরা জানায়।
পুলিশ ও স্থানীয়রা জানায়, বরিশাল থেকে একটি সাদা রংয়ের মাইক্রোবাস বিকেল চারটার দিকে রায়াপুর এলাকার মাঝবাড়ির সামনে আসে। মাইক্রোবাস থেকে দুর্বৃত্তরা হাত পা বাধা অবস্থায় এক যুবকের লাশ ফেলে অল্প সময়ের মধ্যে মাইক্রোবাসটি ঘুরিয়ে বরিশালের দিকে চলে যায়। বাড়ি থেকে প্রাইভেট পড়তে যাওয়ার সময় দুই শিশু ঘটনাটি দেখে চিৎকার শুরু করে। খবর পেয়ে স্থানীয়রা এসে পুলিশে খবর দেয়। পুলিশ গিয়ে লাশ উদ্ধার করে। ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেন ঝালকাঠির পুলিশ সুপার মো. জোবায়েদুর রহমান ও বরিশাল র‌্যাব-৮ এর কর্মকর্তারা।
প্রত্যক্ষদর্শী শিশু পূর্ণিমা জানায়, আমরা বাড়ি থেকে স্যারের কাছে প্রাইভেট পড়তে যাচ্ছিলাম। তখন বরিশাল থেকে একটি মাইক্রোবাস এসে থামায়। ভেতর থেকে একটি লাশ ফেলে তারা আবার ঘুরিয়ে বরিশাল চলে যায়। আমরা কাছে গিয়ে দেখি হাত পা বাধা একজন মাটিতে পড়ে আছে। তখন চিৎকার শুরু করলে এলাকার লোকজন চলে আসে। তারাই পুলিশকে খবর দেন।
রায়াপুর গ্রামের সেলিম হাওলাদার জানান, শিশুদের চিৎকার শুনে আমি দ্রæততম সময়ের মধ্যে মাঝবাড়ির সামনে যাই। আমার সঙ্গে আরো কয়েকজন লোক সেখানে উপস্থিত হয়। শিশুরা আমাদের জানায়, একটি সাদা রংয়ের মাইক্রোবাস থেকে লাশ ফেলে রেখে মাইক্রোবাসটি বরিশালের দিকে চলে যায়।
স্থানীয় বাসিন্দা ছোহরাব হোসেন বলেন, মাইক্রোবাসটি থেকে লাশ ফেলেই তারা ঘুরিয়ে বরিশাল চলে যায়। আমরা এসে মাইক্রোবাসটি দেখতে পাইনি। শিশুদের কাছ থেকে ঘটনা শুনেছি।
নলছিটি থানার ওসি মো. সাখাওয়াত হোসেন বলেন, অজ্ঞাত যুবকটির গলায় ওড়না দিয়ে পেচানো রয়েছে। তাঁর হাত ও পা বাধা ছিল। ধারণা করা হচ্ছে শ্বাসরোধে তাকে হত্যা করা হয়েছে। যুবকটির পরিচয় এখনো পাওয়া যায়নি। আমরা মাইক্রোবাসটির অবস্থান নিশ্চিত হওয়ার জন্য বিভিন্ন স্থানে বার্তা পাঠিয়েছি। লাশ উদ্ধার করে ময়না তদন্তের জন্য মর্গে পাঠানো হয়েছে।