Latest News
শুক্রবার, ৩১ মে ২০২৪ ।। ১৭ই জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
Home / জাতীয় / মুক্তিযোদ্ধারা এখন গর্বের সঙ্গে পরিচয় দেন : ঝালকাঠিতে শিল্পমন্ত্রী

মুক্তিযোদ্ধারা এখন গর্বের সঙ্গে পরিচয় দেন : ঝালকাঠিতে শিল্পমন্ত্রী

স্টাফ রিপোর্টার :
মুক্তিযোদ্ধারা দেশের সম্মানিত ব্যক্তি, এজন্য তাদের সবধরণের সহযোগিতা করা হচ্ছে বলে জানিয়েছেন শিল্পমন্ত্রী আমির হোসেন আমু। তিনি বলেন, আওয়ামী লীগ ক্ষমতায় আছে বলেই মুক্তিযোদ্ধারা এখন গর্বের সঙ্গে নিজেদের পরিচয় দিতে পারেন। আজ শুক্রবার বেলা ১২টায় ঝালকাঠি সদর উপজেলা পরিষদ মিলনায়তনে মুক্তিযোদ্ধাদের কল্যাণে অনুদানের চেক বিতরণ অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে শিল্পমন্ত্রী এসব কথা বলেন।
জিয়াউর রহমান মুক্তিযোদ্ধা সংসদের মধ্যে নানা রকমের ভেজাল ঢুকিয়েছেন অভিযোগ করে শিল্পমন্ত্রী বলেন, জিয়া মুক্তিযোদ্ধা সংসদকে তছনছ করে দিয়েছে। সে মুক্তিযোদ্ধাদের দলীয়করণ করে বাংলাদেশ জিন্দাবাদ শিখিয়ে তাদের বিজাতীয় ভাবধারায় এনেছিল। অথচ মুক্তিযোদ্ধারা যখন যুদ্ধক্ষেত্রে ছিলেন, তখন জয়বাংলা স্লোগান দিয়েছেন। জিয়াউর রহমানের উদ্দেশ্য ছিল মুক্তিযোদ্ধাদের মধ্যে যদি বিভেদ সৃষ্টি করা যায়, পাকিস্তানের বিরুদ্ধে যাঁরা জীবনকে বাজী রেখে দেশটা স্বাধীন করলেন তাদের মধ্যে যদি একটি ভাঙন ধরানো যায়, তাহলে পাকিস্তানিরা যা চায়; সেটা এই দেশে বাস্তবায়ন করা যাবে। সেই উদ্দেশ্যেই বঙ্গবন্ধুকে মেরে ফেলা হলো সপরিবারে, জাতীয় চারনেতাকেও কাগারে হত্যা করা হয়। তখনই বাংলাদেশের মুক্তিযুদ্ধের চেনাকে হত্যা করা হয়েছিল, পাকিস্তানি জিন্দাবাদের মতো বাংলাদেশ জিন্দাবাদ শুরু করা হয়েছিল।
শেখ হাসিনা বঙ্গবন্ধুর স্বপ্ন বাস্তবায়ন করে যাচ্ছেন দাবি করে শিল্পমন্ত্রী বলেন, সুখী সমৃদ্ধ একটি বাঙালি জাতি গড়ে তোলা ছিল বঙ্গবন্ধুর স্বপ্ন। সুখী সমৃদ্ধ জাতি প্রতিষ্ঠা করতে হলে, আগে মানুষ সুখী হতে হবে। জনগণের সুখ-শান্তির কথা চিন্তা করে বঙ্গবন্ধু কন্যা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা এই দেশের অসহায় মানুষগুলোকে সুখী করতে চান। তাদের মাধ্যমে দেশকে সমৃদ্ধশালী করতে চান। আমরা মানুষকে সুখী করতে পেরেছি। অর্থনৈতিক মন্দা আমাদের আঘাত করতে পারেনি।
গ্রামের মানুষ এখন ঘুড়ে দাঁড়িয়েছে জানিয়ে শিল্পমন্ত্রী বলেন, আমাদের দেশের শতকরা ৮৫ ভাগ মানুষ গ্রামে বসবাস করে। সেই মানুষগুলো বিভিন্ন ধরণের ভাতা পেয়ে আজকে ঘুরে দাঁড়িয়েছে। গ্রামে গ্রামে অর্থনীতি সমৃদ্ধ হচ্ছে, বেকারত্ব দূর হচ্ছে। এটাই হচ্ছে উন্নয়ন, এভাবেই বাংলাদেশ এগিয়ে যাচ্ছে। শুধু তাই নয়, পাকিস্তানের চেয়েও বাংলাদেশ এগিয়েছে।
ঝালকাঠি সদর উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান সুলতান হোসেন খানের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে বক্তব্য দেন বিশেষ অতিথি জেলা প্রশাসক মো. হামিদুল হক, পুলিশ সুপার মো. জোবায়েদুর রহমান, জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক অ্যাডভোকেট খান সাইফুল্লাহ পনির ও ঝালকাঠি পল্লী উন্নয়ন বোর্ডের (বিআরডিবি) উপপরিচালক শ্যামা প্রসাদ দে। এসময় উপস্থিত ছিলেন ঝালকাঠি পৌর মেয়র লিয়াকত আলী তালুকদার, সদর উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভূমি) বেগম লুৎফুন্নেছা। অনুষ্ঠানে ২৯২ জন মুক্তিযোদ্ধাকে চার লাখ ১৭ হাজার টাকা আর্থিক সহায়তা প্রদান করা হয়। পরে পল্লী উন্নয়ন বোর্ডের প্রকল্পের সদস্য ৪০জনকে দশ লাখ টাকার ঋণ বিতরণ করেন।