Latest News
শনিবার, ২০ এপ্রিল ২০২৪ ।। ৭ই বৈশাখ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
Home / জাতীয় / ঝালকাঠিতে বাল্য বিয়ে বন্ধ করেছে ভ্রাম্যমাণ আদালত

ঝালকাঠিতে বাল্য বিয়ে বন্ধ করেছে ভ্রাম্যমাণ আদালত

স্টাফ রিপোর্টার :
ঝালকাঠিতে একটি বাল্য বিয়ে বন্ধ করেছে ভ্রাম্যমাণ আদালত। সোমবার রাত ২ টার দিকে খবর পেয়ে শহরের ফকির বাড়ি এলাকায় হাজির হয় ভ্র্যাম্যমান আদালত। এ সময় ওই বাড়িতে মেয়ে তুলে দেওয়ার আয়োজন চলছিল। ভ্রাম্যমান আদালতের উপস্থিতি টের পেয়ে বর জিসান আহম্মেদ ও কনের বাবা শেখ নাসির উদ্দিন পালিয়ে যায়। ভ্রাম্যমাণ আদালতের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট মাহামুদা আক্তার কনের মা রিনা বেগম ও চাচা জাকির হোসেন হাওলাদারকে ১৫ হাজার টাকা করে জরিমানা করেন।
ভ্রাম্যমাণ আদালত সূত্র জানায়, কনের বাড়ি সদর উপজেলার পোনাবালিয়া ইউনিয়নের পশ্চিম ভাওতিতা গ্রামে। গ্রামের বাড়িতে কনের বাল্য বিয়ের আয়োজন করা হলে স্থানীয়রা তাতে বাধা দেয়। পরিবারের লোকজন কনেকে নিয়ে রাতে শহরের ফকির বাড়ি চাচা জাকির হোসেন হাওলাদারের বাসায় আসে। রাতে মেয়েকে বরের কাছে তুলে দেওয়ার সকল প্রস্তুতি সম্পন্ন করা হয় ওই বাসায়। খবর পেয়ে রাত ২টার দিকে ভ্রাম্যমাণ আদালত সেখানে উপস্থিত হয়।
ভ্রাম্যমাণ আদালত বর ও কনের বয়সের কাগজপত্র পরীক্ষা করে কনের বয়স ১৬ বছর ৮ মাস ২৪ দিন এবং বরের বয়স ২২ বছর দেখতে পায়। ভ্রাম্যমাণ আদালত কনের মা ও চাচাকে জরিমানা করেন। তবে বর পক্ষের লোকজন পালিয়ে যায়। ভ্রাম্যমাণ আদালতের সঙ্গে ঝালকাঠি সদর উপজেলার নির্বাহী কর্মকর্তা তানিয়া ফেরদৌস, সদর উপজেলা মহিলা বিষয়ক কর্মকর্তা নাসরিন আক্তার ও স্থানীয় কাউন্সিলর নাছিমা কামাল উপস্থিত ছিলেন। মহিলা বিষয়ক অধিদপ্তরের কাছে কনের অভিভাবকরা মুচলেকা প্রদান করেন। কনের বয়স ১৮ বছর নভ হওয়ার আগে মেয়ের বিয়ে না দেওয়ার প্রতিশ্রুতি দেন।