Latest News
শনিবার, ২০ এপ্রিল ২০২৪ ।। ৭ই বৈশাখ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
Home / জাতীয় / নকল ডেপুটি জেলার সেজে প্রতারণা

নকল ডেপুটি জেলার সেজে প্রতারণা

স্টাফ রিপোর্টার :
নকল ডেপুটি জেলার সেজে ঝালকাঠির এক নারীর কাছ থেকে স্বামীকে মুক্তি দেওয়ার কথা বলে ৫০ হাজার টাকা হাতিয়ে নেওয়ার অভিযোগ পাওয়া গেছে। এ ঘটনায় ঝালকাঠি সদর উপজেলার সারেঙ্গল গ্রামের সিরাজুল ইসলামের খানের স্ত্রী শাহানাজ বেগম শনিবার রাতে থানায় অভিযোগ করেন।
অভিযোগে জানা যায়, শাহানাজ পারভীনের স্বামী সিরাজুল ইসলাম ফৌজদারী মামলায় সাজাপ্রাপ্ত হয়ে বরিশাল কেন্দ্রীয় কারাগারে আছেন। শাহানাজ বেগম বর্তমানে ঝালকাঠি শহরের মধ্য চাঁদকাঠি এলাকায় একটি ভাড়া বাসায় বসবাস করেন। বৃহস্পতিবার সকাল ৯টায় তাঁর মোবাইল ফোনে ০১৮৩৫১২২৮৮০ ও ০১৮৭১৫৪৮২০৩ এ নম্বর থেকে দুই দফায় কল আসে। তাকে জানানো হয় বরিশালের কেন্দ্রীয় কারাগারে ডেপুটি জেলার শহিদুল ইসলাম তাঁর সঙ্গে কথা বলবেন। শাহানাজ পারভীনকে ফোনে কথিত জেলার শহিদুল ইসলাম বলেন ‘সরকার কিছু সাজাপ্রাপ্ত আসামিকে সাধারণ ক্ষমা ঘোষণা করেছেন। এই তালিকায় আপনার স্বামীর নামও রয়েছে। তাকে মুক্ত করার জন্য জরুরি ভিত্তিতে ০১৮৩৫১২২৮৮০ নম্বরে ৫০ হাজার টাকা পাঠাতে হবে।’ শাহানাজ বেগম স্বামীর মুক্তির খবর শুনে আত্মহারা হয়ে কোনকিছু বিবেচনা না করেই ওই ব্যক্তির নম্বরে বিকাশ করে ২৭ হাজার টাকা এবং ঢাকায় অবস্থানকারী তাঁর মেয়ের নম্বর থেকে আরও ২৩ হাজার টাকাসহ সর্বমোট ৫০ হাজার টাকা পাঠিয়ে দেন। বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় তিনি বরিশাল কেন্দ্রীয় কারাগারে যান। কারাগারে গেটে ডিউটিরত কারারক্ষী সোবেদার মাইনুল ইসলামের কাছে তাঁর স্বামীর সাধারণ ক্ষমা ও মুক্তির বিষয়ে জানতে চান। ডেপুটি জেলার শহিদুল ইসলাম তাকে ফোন করেছেন বলেও জানান। কারারক্ষী সোবেদার মাইনুল ইসলাম তাকে জানান, বরিশাল কেন্দ্রীয় কারাগারে ডেপুটি জেলার শহিদুল ইসলাম নামে কেউ নেই। কারা কর্তৃপক্ষ আসামিকে কোন সাধারণ ক্ষমা করেনি।
এ সময় শাহানাজ বেগম কান্নায় ভেঙে পড়েন। তিনি বুজতে পারেন ওই ব্যক্তি মোবাইল ফোনে তাঁর সঙ্গে প্রতারণা করেছে। প্রতারণার বিষয়টি তাৎক্ষনিকভাবে বরিশালের কারা কর্তৃপক্ষ অবগত করা হয়। কারা কর্তৃপক্ষ বিষয়টি থানা পুলিশ ও র‌্যাবকে জানানোর জন্য পরামর্শ দেন। মোবাইল ফোনের রেকর্ড অনুযায়ী এই দুই প্রতারকদের মধ্যে ০১৮৩৫১২২৮৮০ নম্বর ব্যবহারকারী ব্যক্তির নাম মো. আকাশ এবং ০১৮৭১৫৪৮২০৩ নম্বর ব্যবহারকারী ব্যক্তির নাম মেহেদী রহমান।
ঝালকাঠি থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) নাসির উদ্দিন সরকার বলেন, আমরা অভিযোগের ভিত্তিতে তদন্ত শুরু করেছি। দুই প্রতারক ব্যক্তির মুঠোফোন নম্বর থেকে আমরা তাদের তাদের জাতীয় পরিচয়পত্র সংগ্রহ করেছি। তাদের অবস্থান নিশ্চিত করে গ্রেপ্তার করা হবে।

জনতার কণ্ঠ 24 সংবাদ

ঝালকাঠিতে ৩ বছরের শিশুকে ধর্ষণের অভিযোগ, অভিযুক্ত গ্রেপ্তার

স্টাফ রিপোর্টার : ঝালকাঠিতে তিন বছরের এক শিশুকে ধষর্ণের অভিযোগ উঠেছে দুঃসম্পর্কের মামা সাজ্জাদ হোসেন …