Latest News
শনিবার, ২০ এপ্রিল ২০২৪ ।। ৭ই বৈশাখ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
Home / জাতীয় / নলছিটিতে অাওয়ামী লীগের দুই গ্রুপের সংঘর্ষে চেয়ারম্যানসহ অাহত-১০

নলছিটিতে অাওয়ামী লীগের দুই গ্রুপের সংঘর্ষে চেয়ারম্যানসহ অাহত-১০

স্থানীয় প্রতিনিধি : 
অাধিপত্য বিস্তারকে কেন্দ্র করে ঝালকাঠির নলছিটিতে অাওয়ামী লীগের দুই গ্রুপের সংঘর্ষে ইউপি চেয়ারম্যান মাসুদুর রহমান সালামসহ ১০ জন অাহত হয়েছে। বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় রানাপাশা ইউনিয়নের তেঁতুলবাড়িয়া মাধ্যমিক বিদ্যালয় মাঠে স্থানীয় অাওয়ামী লীগের একটি সভাকে কেন্দ্র করে দফায় দফায় এ সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে।
জানাযায়, শুক্রবার নলছিটিতে শিল্পমন্ত্রী আমির হোসেন আমুর অনুষ্ঠান সফল করার জন্য রানাপাশা ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের প্রস্তুতি সভা চলছিল। এ সময় ইউপি চেয়ারম্যান সালাম তাঁর সমর্থকদের নিয়ে উপস্থিত হয়। বিভিন্ন বিষয় নিয়ে ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আবদুল খালেক মাস্টারের সঙ্গে কথার কাটাকাটি হয় সালামের। এক পর্যায়ে উভয় পক্ষের মধ্যে সংঘর্ষ বাঁধে। এতে চেয়ারম্যান সালামসহ উভয় পক্ষের ১০ জন আহত হয়। আহতদের মধ্যে সালামসহ সাতজনকে বরিশাল শেরেবাংলা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়।
চেয়ারম্যান সালামের সমর্থক ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক পান্না মল্লিক বলেন,
চাকরি, সালিশ, দলীয় প্রত্যয়নপত্রসহ নানা কাজে টাকা নেওয়ার বিষয়ে খালেক মাস্টারের বিরুদ্ধে অভিযোগ রয়েছে। সভায় যোগদিয়ে এ বিষয়ে কথা বললে খালেক মাস্টারের লোকজন তাদের ওপর হামলা চালায়। এতে চেয়ারম্যান মাসুদুর রহমান সালাম, দুলাল হাওলাদার, মোতালেব ফরাজী, আবুল হাওলাদার, শহীদ মাঝি, কবির খলিফা, আবদুর রহমানসহ ১০ জন আহত হয় । ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আবদুল খালেক মাস্টার জানান, একটি চলমান সভায় লোকজন নিয়ে অতর্কিত হামলা চালায় সালাম। এতে তিন অাওয়ামী লীগ কর্মী  গুরুতর আহত হয়। আহতরা হচ্ছেন গোলাম সরোয়ার চপল, সাইফুল হোসেন ও আহসান সিকদার। পরে সভায় উপস্থিত কর্মীরা হামলাকারী সালাম চেয়ারম্যান ও তার দলবলের হামলার প্রতিরোধ করলে তারা পালিয়ে যায়। ঘটনার খবর পেয়েই নলছিটি থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) শাখাওয়াত হোসেনসহ পুলিশের একটি দল ঘটনাস্থলে পৌঁছে দ্রুততম সময়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণ করেন । এ ঘটনায় উভয় পক্ষ মামলার প্রস্তুতি নিচ্ছে বলে জানাগেছে।
ওসি শাখাওয়াত হোসেন বলেন, অভিযোগ পেলে অাইনানুগ ব্যবস্থ গ্রহণ করা হবে।