Latest News
মঙ্গলবার, ২৭ ফেব্রুয়ারি ২০২৪ ।। ১৪ই ফাল্গুন ১৪৩০ বঙ্গাব্দ
Home / জাতীয় / রাজাপুরে নির্মিত হচ্ছে মডেল মসজিদ ও ইসলামিক সাংস্কৃতিক কেন্দ্র : ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে উদ্বোধন করলেন প্রধানমন্ত্রী

রাজাপুরে নির্মিত হচ্ছে মডেল মসজিদ ও ইসলামিক সাংস্কৃতিক কেন্দ্র : ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে উদ্বোধন করলেন প্রধানমন্ত্রী

মেহেদী হাসান জসীম :
ঝালকাঠির রাজাপুরে মডেল মসজিদ ও ইসলামিক সাংস্কৃতিক কেন্দ্রের নির্মাণ কাজের উদ্বোধন করেছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে প্রধানমন্ত্রী আজ বৃহস্পতিবার দুপুরে মসজিদের নির্মাণ কাজের উদ্বোধন করেন। রাজাপুর উপজেলা পরিষদ চত্বর থেকে ভিডিও কনফারেন্সে প্রধানমন্ত্রী ঝালকাঠির জেলা প্রশাসক মো. হামিদুল হক ও স্থানীয় কানুদাশকাঠি ইসলামী কমপ্লেক্সের ইমাম মাওলানা আব্দুর রহমানের বক্তব্য শোনেন। এসময় উপস্থিত ছিলেন ধর্ম বিষয়ক মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত স্থানীয় কমিটির সভাপতি ঝালকাঠি-১ আসনের সংসদ সদস্য বজলুল হক হারুন, বরিশালের বিভাগীয় কমিশনার মো. শহিদুজ্জামান, অতিরিক্ত ডিআইজি মো. আজাদ মিয়া, ঝালকাঠির পুলিশ সুপার মো. জোবায়েদুর রহমান, জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক অ্যাডভোকেট খান সাইফুল্লাহ পনির, রাজাপুর উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান অধ্যক্ষ মো. মনিরুজ্জামান, উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা আফরোজা বেগম পারুল ও উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক অ্যাডভোকেট খাইরুল আলম সরফরাজসহ বিভিন্ন শ্রেণি-পেশার মানুষ।

গণভবন থেকে প্রধানমন্ত্রী সরাসরি ভিডিও কনফারেন্সে অংশ নেন। অনুষ্ঠানের শুরুতে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেন, বাংলাদেশে জঙ্গিবাদ, সন্ত্রাস ও মাদক থাকবে না; প্রত্যেকেই শান্তিতে বসবাস করবে। ইসলামের প্রকৃত শিক্ষা ছড়িয়ে দেওয়ার আহ্বান জানান প্রধানমন্ত্রী। প্রতিটি জেলা ও উপজলোয় একটি করে মোট ৫৬০টি মডলে মসজিদ ও ইসলামিক সাংস্কৃতকি কেন্দ্র নির্মাণ র্শীষক প্রকল্পের আওতায় প্রথম র্পযায়ে এই ৯টি মডলে মসজিদ ও ইসলামিক সাংস্কৃতিক কেন্দ্র তৈরি করা হয়।


রাজাপুর উপজেলা পরিষদ চত্বর সংলগ্ন খাদ্য গুদামের পেছনের মাঠে মডেল মসজিদ ও ইসলামিক সাংস্কৃতিক কেন্দ্রটি নির্মিত হচ্ছে। ইসলামিক ফাউন্ডেশনের উদ্যোগে গণপূর্ত অধিদপ্তরের অধীনে ১৩ কোটি টাকা ব্যয়ে ৪০ শতাংশ জমিতে চারতলা বিশিষ্ট এ মডেল মসজিদ ও ইসলামিক সাংস্কৃতিক কেন্দ্র নির্মাণ করা হবে। মসজিদে থাকবে নারী-পুরুষের জন্য অজু ও নামাজের জন্য আলাদা স্থান। এছাড়া লাইব্রেরি, সম্মেলন কক্ষ, বিশ্রামাগার, অতিথি অপ্যায়নের স্থান, কোরআন শিক্ষার স্থানসহ বিভিন্ন সুবিধা। মসজিদে একসাথে ৯০০ মুসল্লি নামাজ আদায় করতে পারবেন।