Latest News
শনিবার, ২২ জুন ২০২৪ ।। ৮ই আষাঢ় ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
Home / আইন-আদালত / স্বামীর বিরুদ্ধে মামলা করে পালিয়ে বেড়াচ্ছে মরিয়ম

স্বামীর বিরুদ্ধে মামলা করে পালিয়ে বেড়াচ্ছে মরিয়ম

মিজানুর রহমান টিটু :
স্বামীর বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করে পালিয়ে বেড়াচ্ছেন ঝালকাঠির রাজাপুর উপজেলার গৃহবধূ মরিয়ম বেগম। স্বামীর দাবিকৃত পাঁচ লাখ টাকা যৌতুক না দেওয়ায় হামলার শিকার হয়ে মামলা করেন ওই গৃহবধূ। এতে ক্ষিপ্ত হয়ে স্বামী শাহীন আহসান সাবু ও তাঁর দ্বিতীয় স্ত্রী ইসরাত জাহান শিবলী অসহায় ওই গৃহবধূ এবং তাঁর দুই সন্তানকে হত্যার হুমকি দিচ্ছেন। আজ সোমবার দুপুরে ঝালকাঠি প্রেস ক্লাবে সংবাদ সম্মেলনে মরিয়ম বেগম এ অভিযোগ করেন।
লিখিত বক্তব্যে তিনি জানান, ২০০৩ সালের ২৫ মে রাজাপুর উপজেলার গালুয়া দুর্গাপুর গ্রামের মৃত নেছার উদ্দিনের ছেলে শাহীন আহসান সাবু জোর করে তাকে বিয়ে করে। তাঁর বাবা আবদুর রব সিকদার সৌদি আরবে থাকার কারণে বিয়েতে কেউ বাধা দিতে সাহস পায়নি। ওই সময় তিনি দশম শ্রেণিতে পড়তেন। বিয়ে হওয়ার পরে সংসার করতে গিয়ে তাঁর আর পড়ালেখা হয়নি। তাদের দুটি সন্তান রয়েছে। বেকার স্বামী শাহীন বিভিন্ন সন্ত্রাসী কর্মকান্ডের সঙ্গে যুক্ত ছিলেন। স্বামীকে সুপথে ফিরিয়ে আনার চেষ্টা করেন তিনি। এক পর্যায়ে সৌদি প্রবাসী বাবাকে ফোনে বিষয়টি জানান। তাঁর বাবা ২০০৪ সালের শেষের দিকে পাঁচ লাখ টাকা খরচ করে শাহীনকে সৌদি নিয়ে যায়। সেখানে গিয়েও কাজ করতে অনিহা প্রকাশ করে শাহীন। কিছুদিন পরে তাঁর বাবা শাহীনকে একটি ফাইভস্টার হোটেলে অল্প পরিশ্রমের চাকরি দিয়ে দেন। ২০০৯ সালে সে দেশে এসে দুইমাস ছুটি কাটিয়ে আবার সৌদি চলে যায়। এর পর থেকেই শাহীন তাঁর সঙ্গে যোগাযোগ বন্ধ করে দেন। দুই ছেলে সন্তান নিয়ে অসহায় পড়ে পড়েন তিনি। অনেক খোঁজাখুজির পরে গত বছরের এপিল মাসে স্বামী শাহীন আহসান সাবুকে পিরোজপুরের ভান্ডারিয়া উপজেলার বাসস্ট্যান্ডে একটি দোকানে দেখতে পান। ওই দোকানটিতে শাহীন খোলা তেল ও মবিলের ব্যবসা করছিল। স্বামীকে পেয়ে তিনি বাড়িতে নিতে চাইলে, শাহীন তাঁর সঙ্গে কোন সম্পর্ক নেই বলে দাবি করেন। তাঁর আত্নীয়-স্বজনরা এসে জানতে পারে প্রথম বিয়ের তথ্য গোপন করে শাহীন আরেকটি বিয়ে করেছে। তাঁর দ্বিতীয় স্ত্রীর নাম ইসরাত জাহান শিবলী। এর পরেও স্বামীকে ফিরিয়ে নেওয়ার চেষ্টা করলে ব্যবসা করার জন্য শাহীন তাঁর কাছে পাঁচ লাখ টাকা যৌতুক দাবি করে। টাকা না দিলে কোন সম্পর্ক থাকবে না বলেও হুশিয়ারি দেন শাহীন। এ ঘটনায় গত বছরের ১৪ মে ঝালকাঠির জ্যেষ্ঠ বিচারিক হাকিম আদালতে স্বামীর বিরুদ্ধে একটি মামলা করেন তিনি। এতে ক্ষিপ্ত হয়ে শাহীন ও তাঁর দ্বিতীয় স্ত্রী লোকজন নিয়ে গত বছরের ৭ ডিসেম্বর তাকে এবং তাঁর সন্তানদের কুপিয়ে ও পিটিয়ে আহত করে। এ ঘটনায় ১৬ ডিসেম্বর স্বামী ও তাঁর দ্বিতীয় স্ত্রীর বিরুদ্ধে রাজাপুর থানায় আরেকটি মামলা দায়ের করেন তিনি। এতে আরো ক্ষিপ্ত হয় তারা। পুলিশের সঙ্গে তদবির করে শাহীন মামলাটি চূড়ান্ত প্রতিবেদন দেওয়ার ব্যবস্থা করেন। বেপরোয়া শাহীন এর পর থেকে তাকে ও দুই সন্তানকে হন্য হয়ে খুঁজতে থাকেন। কোথাও পেলে হত্যা করে লাশ নদীতে ভাসিয়ে দেওয়ার হুমকি দিয়ে আসছেন। এ অবস্থায় পালিয়ে বেড়াচ্ছেন গৃহবধূ মরিয়ম বেগম। তিনি স্বামীর নির্যাতনের বিচার দাবি করেছেন সংবাদ সম্মেলনে।