Latest News
বৃহস্পতিবার, ২২ ফেব্রুয়ারি ২০২৪ ।। ৯ই ফাল্গুন ১৪৩০ বঙ্গাব্দ
Home / জাতীয় / হাসির মুখে হাসি ফোটালেন ডিসি জোহর

হাসির মুখে হাসি ফোটালেন ডিসি জোহর

কে এম সবুজ :
খাদ্যসামগ্রী না পেয়ে আক্ষেপ করা ঝালকাঠির সেই হাসি বেগমকে সহায়তার হাত বাড়িয়ে দিয়েছে জেলা প্রশাসন। বৃহস্পতিবার সকালে হাসি বেগমসহ অর্ধশত কর্মহীন মানুষের হাতে ১০ কেজি চাল, পাঁচ কেজি আলু, দুই কেজি ডাল ও একটি করে সাবান তুলে দেন জেলা প্রশাসক মো. জোহর আলী। ১ এপ্রিল কালের কণ্ঠে ‘দুই দিনে কেউ বাড়িতে খাবার দিয়া আসেনি’ শিরোনামে একটি প্রতিবেদন প্রকাশিত হয়। প্রতিবেদনটি নজরে আসে জেলা প্রশাসনের। পরে ওই প্রতিবেদনের তথ্যানুযায়ী দরিদ্র কর্মহীন মানুষের তালিকা করে তাদের হাতে খাদ্যসামগ্রী তুলে দেন জেলা প্রশাসক। সহায়তা পেয়ে হাসি বেগম আবেগে আপ্লুত হয়ে পড়েন।
শহরের কাঠপট্টি এলাকার বাসায় গিয়ে কথা হয় হাসি বেগমের সঙ্গে। তিনি বলেন, শুনেছি বিভিন্ন সংগঠন গরিব মানুষেরে সাহায্য করে। আমার বাসায় খাবার ছিলো না, তাই আমিও রাস্তায় বের হইছিলাম। কিন্তু যাদের কাছেই যাই, তারা বলে বাড়িতে খাবার দিয়া আসবো। পরে আপ্নাগো পত্রিকার খবর পাইয়্যা, আমারে ১০ কেজি চাল, পাঁচ কেজি আলু, দুই কেজি ডাল ও একটি সাবান দিছে। আমি খুবই কৃতজ্ঞ ডিসি স্যারের প্রতি। তিনি আমার খোঁজখবর নিয়েছেন। আল্লাহর কাছে তাঁর জন্য দোয়া করি।
শুধু হাসিবেগমই নয়, অর্ধশত কর্মহীন দরিদ্র মানুষের হাতে খাদ্যসামগ্রী দেওয়া হয় জেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে। বিভিন্ন স্থানে ঘুরে জেলা প্রশাসনের কর্মকর্তারা দরিদ্র এসব মানুষের তালিকা করে সহায়তা দিচ্ছেন।
ঝালকাঠির অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক মো. আরিফুল ইসলাম বলেন, যারা এখনো কোন সহযোগিতা পায়নি, আমাদের কাছে তাদের তথ্য দিলে খোঁজখবর নিয়ে আমরা খাদ্যসামগ্রী পৌঁছে দেবো। কালের কণ্ঠে সংবাদ প্রকাশের পরে আমরা হাসি বেগমসহ অর্ধশত কর্মহীন মানুষকে খুঁজে বের করে সহায়তা করেছি।
ঝালকাঠির জেলা প্রশাসক মো. জোহর আলী বলেন, জেলায় এখন পর্যন্ত ৮ হাজার ১০০ মানুষকে জেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে খাদ্যসামগ্রী বিতরণ করা হয়েছে। এখনো ২৪৩ মেট্রিকটন খাদ্যসামগ্রী বিতরণ কার্যক্রম চলছে। জেলার কোন দরিদ্র মানুষ অভুক্ত থাকবে না।

জনতার কণ্ঠ 24 সংবাদ

ঝালকাঠির সাংবাদিক কাজী সুমনের বাবার ইন্তেকাল

স্টাফ রিপোর্টার : ঝালকাঠি প্রেস ক্লাবের সদস্য কাজী সোলায়মান সুমনের বাবা অবসরপ্রাপ্ত শিক্ষক কাজী গিয়াস …